নান্দাইলে হতদরিদ্রের চাল চুরির হিড়িক, ৪৮ বস্তা চালসহ আটক ২

প্রকাশিত: ৬:৪২ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ১৪, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ময়মনসিংহের নান্দাইলে দূর্নীতির দায়ে ২০১৬ সালে বাতিল হওয়া ২৪ জন ডিলার নাম পরিবর্তন করে ফের ডিলার নিয়োগ লাভ করেছেন। ফলে মহামারী করোনার প্রভাবের দূর্যোগের মধ্যেও হতদরিদ্রের জন্য বরাদ্ধকৃত সরকারী চাল চুরির হিড়িক পড়েছে। গতকাল সোমবার ও মঙ্গলবার চন্ডিপাশা ও সিংরাইল ইউনিয়ন থেকে পৃথক পৃথক ভাবে চুরি হওয়া ৪৮ বস্তা চালসহ আটক হয়েছে ২ জন।
তারা হলেন- আশরাফুল আলম(২৩) ও মজিবুর রহমান (৪৫)। চুরি হওয়া চাল পাচারকালে তাদের গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন নান্দাইল থানার ওসি মনসুর আহম্মেদ ও হোসেনপুর থানার ওসি শেখ মোস্তাফিজুর রহমান।
সূত্র জানায়, গ্রেফতারকৃতরা ক্ষমতাসীন দলের সমর্থক ও কর্মী এবং সংশ্লিষ্ট ডিলাররা ক্ষমতাসীন দলের নেতা ও স্থানীয় এমপির সমর্থক।
সংশ্লিষ্ট সূত্র আরো জানায়, ২০১৬ সালে নান্দাইল উপজেলায় হতদরিদ্রের ২৬ হাজার উপকারভোগীর চাল বিতরনে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠে সংশ্লিষ্ট ডিলারদের বিরুদ্ধে। ওই সময় সরেজমিন তদন্তে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ অনিয়মের সত্যতা পেলে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে উপজেলার ৪৮ জন ডিলারের মধ্যে ২৪ জনের ডিলারশিপ বাতিল করেন।
কিন্তু অভিযোগ উঠেছে, স্থানীয় ক্ষমতাসীন দলের র্শীষ নেতার প্রভাবে অনিয়মের অভিযোগে বাতিল হওয়া ডিলাররা নিজের নাম পরিবর্তন করে কেউ পিতার নামে, কেউ ছেলে বা স্ত্রীর নামে। আবার কেউ ভাইয়ের নামে পুনরায় ডিলার নিয়োগ লাভ করে ফের অনিয়ম দূর্নীতির মাধ্যমে সরকারী চাল হরিলুট করে যাচ্ছেন। গত দুই দিনে পৃথক পৃথক ভাবে চুরি হওয়া ৪৮ বস্তা চাল পাচালকালে ২ জন আটক হওয়ার মধ্য দিয়ে অনিয়মের প্রমান মিলেছে বলে দাবি করেছেন স্থানীয়রা।
ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন ২০১৬ সালে অনিয়মের অভিযোগে বাতিল হওয়া ডিলার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ও স্থানীয় এমপির ঘনিষ্ঠভাজন রুহুল আমীন। তিনি বলেন, সিংরাইল ইউনিয়নে আমার বাবা আ: মালেক নিয়োগপ্রাপ্ত ডিলার। আমার এলাকার যে চাল আটক হয়েছে তা বিতরনকৃত। এর আগে আমি ২০১৬ সালে ডিলাম ছিলাম। পরে তা বাতিল হয়ে যাওয়ায় আমার পিতার নামে ডিলার নেওয়া হয়েছে।
এসব বিষয়ে সংশ্লিষ্ট খাদ্য গুদাম কর্মকর্তা আ: বারেক বলেন, ২০১৬ সালের বিষয়টি আমি অবগত নই। মাত্র একমাস আগে আমি এ উপজেলায় যোগদান করেছি। বর্তমানে উপজেলায় ডিলার রয়েছে ৫০জন। উপকারভোগী রয়েছে ২৬ হাজারের অধিক। তিনি আরো জানান, আমার জানামতে উপজেলায় ২৪ বস্তা চালসহ একজন আটক হয়েছে এবং মামলা হয়েছে।
ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নান্দাইল থানার ওসি মনসুর আহম্মেদ বলেন, চাল পাচার ঘটনায় মামলা হয়েছে এবং আটককৃতকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।
এ বিষয়ে খাদ্য বান্ধব কর্মসূচি পরিচালনা কমিটির সভাপতি নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুর রহিম সুজন বলেন, বিষয়গুলো খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেয়া হবে।