জার্নাল ডেস্ক
25 November 2019
  • No Comments

    কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রলীগের সংর্ঘষ, আহত ৫

    আমান উল্লাহ আকন্দ জাহাঙ্গীর:
    ময়মনসিংহের ত্রিশালে অবস্থিত জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মাঝে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে আহত হয়েছে কমপক্ষে ৫ ছাত্রলীগ নেতা-কর্মীরা।
    সোমবার দুপুরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।
    আহতরা হলেন-হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের শিক্ষার্থী হুমায়ন কবীর, আইন ও বিচার বিভাগের নাইমুর রহমান দূর্জয়, সজীব চন্দ্র ও আরিফুর রহমানসহ আরো একজন।
    খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. এএইচএম মোস্তাফিজুর রহমান। তিনি বলেন, আহত এক শিক্ষার্থীর মাধ্যমে ঘটনাটি আমি শুনেছি। প্রক্টরকে ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। তবে বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত আছে।
    সূত্র জানায়, রবিবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২নং গেইটে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি গ্রুপের সমর্থক কলা অনুষদ ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি সবুজ পালের সাথে সাধারন সম্পাদক গ্রুপের সমাজ বিজ্ঞান অনুষদ ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক কাউছারের সংর্ঘষ বাঁধে। এ সময় দুই পক্ষের মাঝে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এতে বেশ কয়েকজন নেতা-কর্মী আহত হন। এ ঘটনার জের ধরে সোমবার দুপুরে ফের বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের যুগ্ম সাধারন সম্পাদক মোহাম্মদ নয়ন মন্ডলের অনুসারী হিসাব বিজ্ঞান ও তথ্য পদ্ধতি বিভাগের শিক্ষার্থী হুমায়ন কবীরকে রড দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক আহত করে সংগঠনের সাধারন সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের সমর্থকরা।
    এ ঘটনায় আহত হুমায়ন কবীর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর বরাবরে লিখিত অভিযোগ করেছে। অভিযোগের সত্যতা নিশ্চিত করে হুমায়ন কবীর জানান, বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের সমর্থকরা আমাকে বেধরক পিটিয়ে আহত করেছে। বর্তমানে আমি ক্যাম্পাসের স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসাধীন আছি।
    এবিষয়ে যোগাযোগ করেও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক রাকিবুল ইসলাম রাকিবের বক্তব্য জানা যায়নি। তবে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম বাবু বলেন, পোলাপানের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনায় ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। এটা বড় কোন বিষয় না।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *