জার্নাল ডেস্ক
3 November 2019
  • No Comments

    অগ্নিঝুঁকিতে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়,নেই কোনো অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডার

    আহসান হাবীব,
    নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি:

    বিশ্ববিদ্যালয়ের কোনো ভবনেই নেই পর্যাপ্ত অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডার। বর্তমানে যে কয়েকটি সিলিন্ডার আছে তার প্রত্যেকটির মেয়াদও শেষ হয়েছে প্রায় এক বছর আগে।

    বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার, বিজ্ঞান ভবন, শিক্ষক ডরমিটরি কোথাও একটিও অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডার কিংবা যন্ত্র নেই। বিশ্ববিদ্যালয়ের কলা ভবনের নিচতলায় একটি অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডারের দেখা মিললেও মেয়াদ শেষ হয়েছে প্রায় বছর খানেক আগে। একই অবস্থা দেখা যায় বিশ্ববিদ্যালয়ের কনফারেন্স কক্ষেরও, এখানকার সিলিন্ডিরটিরও মেয়াদ শেষ অনেক আগে উত্তীর্ণ হয়ে গেছে

    বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার আগুন ঝুঁকিতে থাকায় এক প্রশ্নের জবাবে অতিরিক্ত গ্রন্থাগারিক ড. মোহাঃ আজিজুর রহমান বলেন, “লাইব্রেরিতে কখনো অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডার ছিল না। ভবনটি যেহেতু এখনও নির্মাণাধীন তাই এখনো আনা হয়নি।” অগ্নিনির্বাপক যন্ত্র না থাকায় গ্রন্থাকার ঝুঁকিতে আছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, “আমরা সবসময় বিদ্যুতের লাইনগুলো চেক করি। এতে করে ওই সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা থাকেনা।”

    নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিজ্ঞান ভবনে নিয়োজিত এক কর্মচারী বলেন, আমি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাকালীন সময় থেকে এখানে কাজ করি। প্রথম দু এক বছর এখানে কয়েকটা সিলিন্ডার থাকলেও প্রায় ৮/৯ বছর থেকে কোনো সিলিন্ডার নেই।

    বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবনে বিভিন্ন সময় কিছু সিলিন্ডার দেখা গেলেও এখন সেখানে একটিও সিলিন্ডার পাওয়া যায়নি। একটি সুত্র থেকে জানা যায়, সম্প্রতি ত্রিশাল ফায়ার সার্ভিস একটি কর্মশালা করে এবং বিশ্ববিদ্যালয় আগুন ঝুঁকিপূর্ণ দেখে বিশ্ববিদ্যালয়কে বেশ কয়েকটি সিলিন্ডার দেয়। কিন্তু এখনো কোথাও সেই সিলিন্ডার দেখা যায় নি। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ফায়ার সার্ভিসের দূরত্ব খুব বেশি নয় বলে আগুনের ঝুকিও কম বলে জানান তিনি।

    শিক্ষক ডরমিটরি ব্রহ্মপুত্র নিকেতনের গেটম্যান জানান, এখানকার অনেকেই এই অগ্নিনির্বাপক সিলিন্ডারের অভাব বোধ করেন এবং ঝুঁকি নিয়ে বসবাস করেন।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *