জার্নাল ডেস্ক
25 October 2019
  • No Comments

    নুসরাত জাহান হত্যায় ১৬ আসামির সবাইকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত

    নিজস্ব প্রতিবেদক:
    ফেনীর সোনাগাজীর মাদ্রাসা ছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় ১৬ আসামির সবাইকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন আদালত। গতকাল বেলা পৌনে ১১টায় ফেনীর নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক মো. মামুনুর রশিদ এ রায় ঘোষণা করেন।

    দণ্ডিতরা হলেন সোনাগাজীর ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলা, ওই মাদ্রাসার গভর্নিং বডির সহসভাপতি ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি রুহুল আমীন, সোনাগাজীর পৌর কাউন্সিলর ও আওয়ামী লীগ নেতা মাকসুদ আলম, মাদ্রাসার শিক্ষক হাফেজ আব্দুল কাদের, প্রভাষক আফসার উদ্দিন, ছাত্রলীগ নেতা নূর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামীম, সাইফুর রহমান মোহাম্মদ জোবায়ের, জাবেদ হোসেন, কামরুন নাহার মনি, উম্মে সুলতানা ওরফে পপি, আব্দুর রহিম শরীফ, ইফতেখার উদ্দিন রানা, ইমরান হোসেন ওরফে মামুন, মোহাম্মদ শামীম ও মহিউদ্দিন শাকিল।

    নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনের ৪ (১)/৩০ ধারায় দোষী সাব্যস্ত করে এ ১৬ আসামির সবাইকে মৃত্যুদণ্ডের পাশাপাশি ১ লাখ টাকা করে অর্থদণ্ডও দিয়েছেন বিচারক।

    দেশব্যাপী আলোচিত এ মামলার রায় শুনতে গতকাল সকাল ৯টা থেকে আদালত প্রাঙ্গণে আসামিদের স্বজন, গণমাধ্যম কর্মীসহ শত শত উত্সুক জনতা ভিড় করেন। র্যাব ও পুলিশের কড়া নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে ১০টা ৫০ মিনিটে আসামিদের আদালতে হাজির করা হয়। বেলা ১১টায় বিচারক মো. মামুনুর রশিদ এজলাসে উপস্থিত হয়ে মামলার রায় পড়া শুরু করেন। টানা ১৫ মিনিট ধরে তিন পৃষ্ঠার রায়ের মূল অংশ পাঠ করে এজলাস ত্যাগ করেন।

    রায় ঘোষণাকালে বিচারক বলেন, ‘নারীত্বের মর্যাদা রক্ষায় ভিকটিম নুসরাত জাহান রাফির তেজোদ্দীপ্ত আত্মত্যাগ তাকে এরই মধ্যে অমরত্ব দিয়েছে। তার এ অমরত্ব চিরকালের অনুপ্রেরণা। পাশাপাশি আসামিদের ঔদ্ধত্য কালান্তরে মানবতাকে লজ্জিত করবে নিশ্চয়। বিধায়, দৃষ্টান্তমূলক কঠোরতম শাস্তিই আসামিদের প্রাপ্য।’

    রায় ঘোষণার সময় কাঠগড়ায় থাকা আসামিরা নিস্তব্ধ থাকলেও পরে তারা হাউমাউ করে কেঁদে নিজেদের নির্দোষ দাবি করেন।

    আদালত প্রাঙ্গণে মামলার আসামি হাফেজ আবদুল কাদেরের পিতা আবুল কাশেম খান, জাবেদ হোসেনের ভাই জাহেদ হোসেন, নুর উদ্দিনের মা রাহেলা বেগম, আবদুর রহিম শরীফের মা নুর নাহার ও ইফতেখার উদ্দিন রানার পিতা জামাল উদ্দিন প্রকাশ্যে এ রায়ের বিরোধিতা করেন। তারা নুসরাত হত্যা মামলাটি মিথ্যা ও তাদের সন্তানদের বিনা দোষে ফাঁসি দিয়েছেন বলে অভিযোগ করেন। আসামি মো. শামিমের আইনজীবী সিরাজুল ইসলাম বলেন, হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে ১২ আসামি জবানবন্দি দিলেও আদালত ১৬ আসামির মৃত্যুদণ্ড দিয়েছেন। তিনি এ সময় তার মক্কেল মো. শামীমের পক্ষে উচ্চ আদালতে আপিল করবেন বলেও জানান।

    এদিকে রায় ঘোষণার পর সন্তুষ্টি জানিয়েছেন মামলার বাদী ও নুসরাতের ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান, বাবা একেএম মূসা মানিক ও ছোট ভাই রাশেদুল হাসান রায়হান। তবে দ্রুত এ রায়ের বাস্তবায়ন চান তারা। মামলার রায়সহ কাগজপত্র এক সপ্তাহের মধ্যে অ্যাটর্নি জেনারেলের দপ্তরে পাঠানো হবে বলে জানান বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহজাহান সাজু। নিজ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ করায় গত ৬ এপ্রিল পরীক্ষা কেন্দ্র থেকে মাদ্রাসার ছাদে ডেকে নিয়ে নুসরাতের শরীরে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। চিত্কার শুনে কেন্দ্রে থাকা পুলিশ তাকে উদ্ধার করে প্রথমে সোনাগাজী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখান থেকে ফেনী জেনারেল হাসপাতাল ও পরে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ১০ এপ্রিল নুসরাতের মৃত্যু হয়।

    নুসরাতকে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ এনে ৮ এপ্রিল তার বড় ভাই মাহমুদুল হাসান নোমান বাদী হয়ে সোনাগাজী মডেল থানায় মামলা করেন। মামলায় অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলা, সোনাগাজী পৌরসভার ৪ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মাকসুুদ আলম, নেতা নুর উদ্দিন, শাহাদাত হোসেন শামিম, জাবেদ হোসেন, হাফেজ আবদুল কাদের, যোবায়ের আহম্মেদ ও আফসার উদ্দিনের নাম উল্লেখ করা হয়। এছাড়া হাতমোজা, চশমা ও বোরকা পরা চারজনসহ অজ্ঞাত আরো অনেককে আসামি করা হয়।

    নুসরাত হত্যার মামলাটির তদন্ত প্রথমে করছিলেন সোনাগাজী থানার পরিদর্শক কামাল হোসেন; কিন্তু ওই থানার ওসিসহ পুলিশ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে নুসরাত হত্যাকাণ্ডের সময় গাফিলতির অভিযোগ উঠলে তদন্তভার আসে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) ওপর।

    পিবিআইয়ের পরিদর্শক শাহ আলম এজাহারভুক্ত আট আসামির সঙ্গে আরো আটজনকে যুক্ত করে ১৬ জনকে আসামি করে গত ৫ মে আদালতে অভিযোগপত্র দেন।

    তার পরের মাসে ২০ জুন ১৬ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় ১৬ আসামির বিচার। ৯২ জন সাক্ষীর মধ্যে ৮৭ জনের সাক্ষ্য নেয়ার পর গত ৩০ সেপ্টেম্বর রায়ের দিন ঠিক করেন আদালত। সে অনুযায়ী গতকাল মামলাটির রায় ঘোষণা করা হয়।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *