জার্নাল ডেস্ক
6 January 2021
  • No Comments

    ময়মনসিংহে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ভাঙ্গা পা নিয়েই রাজপথে ছাত্রনেতা

    আনিসুর রহমান ফারুক, ময়মনসিংহ :

    বর্ণাঢ্য আয়োজনের মাধ্যমে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে দেশের সবচেয়ে প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপিত হয়েছে। ১৯৪৮ সালের এই দিনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ফজলুল হক হলে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরুর পর থেকেই বিভিন্ন সঙ্কটে আন্দোলনে নেতৃস্থানীয় ভূমিকা পালন করে আসছে ছাত্রলীগ।

    এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩১ ডিসেম্বর ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর পোস্টার লাগাতে গিয়ে রাতের বেলায় পা পিছলে পড়ে গিয়ে বাম পা ভেঙ্গে গেলেও নিজেকে থামিয়ে রাখেনি, যেভাবেই হোক সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করতে হবে।

    কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের ঘোষিত কর্মসূচি পালনে নিজের পিতা-মাতা ও নেতাকর্মীদের বারণ করা সত্ত্বেও ভাঙ্গা বাম পা নিয়েই স্ক্রেচে ভর করে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের কর্মসূচি পালন করেছে জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর আদর্শ হৃদয়ে ধারণ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বের একজন ক্ষুদ্র কর্মী হয়ে তরুণ প্রজন্মকে সঙ্গে নিয়ে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য জননেত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষে মহানগর ছাত্রলীগের ওয়ার্ড পর্যায়ের প্রতিটি নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ করে সংগঠনকে এগিয়ে নিতে রাজপথে নেতৃত্ব দিয়ে আসছে ময়মনসিংহ মহানগর ছাত্রলীগের প্রাণভোমরা,তৃনমুল ছাত্রলীগের জনপ্রিয় ও তারুণ্যদীপ্ত, মানবিক ছাত্রনেতার উপমায় ভূষিত নওশেল আহম্মেদ অনি।

    ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা জানান, মহানগর ছাত্রলীগের তৃনমুল পর্যায়ে ব্যাপক জনপ্রিয় এ ছাত্রনেতা শৈশব জীবন থেকেই শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে সোচ্চার। রাজনীতির প্রয়োজনে, নগরবাসীর দু:সময়ে নিবেদিতপ্রাণ একজন। নতুন চিন্তা-ভাবনা বা কনসেপ্ট প্রাধান্য পায় তাঁর রাজনীতিতে। কখনও ছুটেন দুস্থ ও অসহায় মানুষের জন্য খাবার নিয়ে আবার কখনও বাড়ি বাড়ি গিয়ে পৌঁছে দেন সবজি।এসব গুণের কারণেই তাঁর নামের পাশে যোগ হয়েছে মানবিক ছাত্রনেতার উপমা। চলতি করোনা দুর্যোগে ছাত্রনেতা নওশেল আহমেদ অনির নানা উদ্যোগ নগরবাসীর মাঝে প্রশংসা কুড়িয়েছে। ময়মনসিংহ মহানগর ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী নেতাদের মাঝে অনিই একমাত্র নেতা যার কনসেপ্ট কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতৃত্বকেও মুগ্ধ করেছে।

    বাংলাদেশ ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্যের নির্দেশ বাস্তবায়নের পাশাপাশি রাজনীতিতে মেধাবী এ তরুণ অনুসরণ করেন এবং হৃদয়ে লালন করেন ময়মনসিংহের রাজনীতির ইতিহাসে চির আকাঙ্খিত মানুষ, ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের মেয়র মো.ইকরামুল হক টিটুকে। মানবিক ছাত্রনেতার প্রতিকৃতি নওশেল আহমেদ অনি ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে থেকে রাজপথে নেতৃত্ব দিয়ে আসা ময়মনসিংহ মহানগর ছাত্রলীগের পদপ্রত্যাশী অনির কাছে মানবতাই যেন শ্রেষ্ঠ ধর্ম বলে মনে করেন অনির অনুসারীরা।

    সূত্র মতে, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক করোনা দুর্যোগে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানো ছাত্রনেতাদের নিয়মিত কর্মযজ্ঞ নিজেদের ফেসবুক ওয়ালে শেয়ার করেছেন। সেই হিসেবেও ময়মনসিংহ মহানগরে সবার আগে উচ্চারিত হচ্ছে নওশেল আহমেদ অনির নাম।

    প্রাণের সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে ভাঙ্গা পা নিয়েই গত ৪ জানুয়ারী সকালে নগরীর নতুনবাজার এলাকায় মহানগর ছাত্রলীগের অস্থায়ী কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা উত্তোলন করার পাশাপাশি নগরের সার্কিটহাউজে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন সাধারন সম্পাদক নওশেল আহম্মেদ অনির নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে সংগঠনের নেতাকর্মীরা। বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে আসা নেতাকর্মীদের স্লোগানে মুখরিত হয়ে ওঠে সার্কিটহাউজ এলাকার চারপাশ। পরে মহানগর ছাত্রলীগের প্রতিটি ওয়ার্ডের নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে সংগঠনের অস্থায়ী কার্যালয়ে ৭৩তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কেক কাটে। দুপুরের দিকে নগরীর প্রাণকেন্দ্র নতুনবাজার এলাকায় নগরীর বিভিন্ন ওয়ার্ড থেকে খন্ড খন্ড মিছিল এসে সেখানে জড়ো হলে পুরো এলাকা জনস্রোতে পরিণত হলে দীর্ঘ যানজটের সৃষ্টি হওয়ায় ভাঙ্গা পা নিয়েই স্ক্রেচে ভর করে আনন্দ র‍্যালিটির উদ্বোধন করে প্রায় দেড় কিলোমিটার রাজপথ হেঁটে নগরের রেলওয়ে স্টেশনের কৃষ্ণচুড়া ময়দানে বিশাল ছাত্র সমাবেশে বক্তব্য রাখেন মানবিক ছাত্রনেতা নওশেল আহম্মেদ অনি।

    পরে মহানগর ছাত্রলীগ আয়োজিত সংক্ষিপ্ত সমাবেশে নেতাকর্মীদের উদ্দ্যেশে দেয়া বক্তব্যে নওশেল আহম্মেদ অনি বলেন, সূর্যের আলোর মতো তেজদীপ্ত হয়ে গণমানুষের অধিকার আদায়ে নিয়মিত রাজপথে সোচ্চার এবং ছাত্রসমাজের অভিভাবক হিসেবে প্রতিনিধিত্ব করে চলেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। বর্তমান সময়েও বাংলাদেশ ছাত্রলীগ ছাত্র সমাজের কাছে সবচেয়ে জনপ্রিয় ছাত্র সংগঠন। জাতির পিতার নিজ হাতে গড়া ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগ। জাতিকে এগিয়ে নিতে কাজ করে যাবে নিরন্তর।

    সে প্রত্যাশায় সবাইকে কাজ করার আহ্বান জানিয়ে আরো বলেন, ছাত্রলীগকে ইতিবাচক কর্মসূচীতে যুক্ত করেন সজিব ওয়াজেদ জয়। যা নতুন করে ছাত্রসমাজ ও সাধারণ মানুষের মাঝে প্রভাব বিস্তার করতে সক্ষম হয়। সে ধারাবাহিকতায় বর্তমান বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য ছাত্রলীগকে নিয়ে যাচ্ছেন সাধারণ মানুষের দোরগোড়ায়।

    এই দেশের ইতিহাসের সৃষ্টি লগ্ন থেকে এখন পর্যন্ত প্রত্যেকটি অর্জনে ছাত্রলীগের অংশীদারিত্ব আছে। তরুণ প্রজন্মের আলোকবর্তিকা নিয়েই মহানগর ছাত্রলীগ জনপ্রিয় ছাত্রসংগঠন হিসেবে পরিচালিত হচ্ছে। জনপ্রিয় সংগঠন হিসেবে অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে আমরা তরুণ প্রজন্মকে সঙ্গে নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছি। এগিয়ে যাবো, ইনশাআল্লাহ।

    সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- আনন্দ মোহন বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ন আহ্বায়ক শেখ সজল, মহানগর ছাত্রলীগ নেতা শাহীন আলম, শাহরিয়ার মিশু, উবায়েদ উল্লাহসহ মহানগরের বিভিন্ন ওয়ার্ডের নেতৃবৃন্দ।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *