ময়মনসিংহে মা খুনের বিচায় চেয়ে আতঙ্কে বাদি !

প্রকাশিত: ৫:৩৯ অপরাহ্ণ, ডিসেম্বর ৭, ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ময়মনসিংহে প্রকাশ্য দিবালোকে মা খুনের বিচার চেয়ে আদালতে মামলা দায়ের করে এখন আতঙ্কে দিন কাটছে বাদি পরিবারের। ঘটনাটি সদর উপজেলার ভাবখালী ইউনিয়নের নারায়ণপুর গ্রামের। এনিয়ে স্থানীয়দের মাঝে মিশ্রপ্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে।
অভিযোগ উঠেছে, আসামী পক্ষের প্রভাবশালী মহলের ষড়যন্ত্রে মামলায় র্দীঘ শত্রুতা সৃষ্টি করে ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য আনোয়ারা হত্যা মামলায় জেলখাটা ১০ নং আসামী রেহানা ইয়াসমিন বাদি হয়ে উল্টো মামলা দায়ের করেছেন। ওই মামলায় নিহতের স্বামী-সন্তানসহ স্বাক্ষীদের আসামী করে হয়রানী করছে বলে অভিযোগ করেছেন নিহতের মেয়ে ও মামলার বাদি রোকেয়া বেগম।
থানা-পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, ২০১৫ সালের ১১ডিসেম্বর পূর্ব শত্রুতায় প্রতিপক্ষের স্বশস্ত্র সন্ত্রাসীরা প্রকাশ্যে হামলা চালিয়ে আনোয়ারা বেগমকে কুপিয়ে খুনের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় নিহতের মেয়ে রোকেয়া বেগম বাদি হয়ে ঘটনার পরদিন ১২ডিসেম্বর কোতয়ালী মডেল থানায় ১৪ জনের নাম উল্লেখ করে মামলা দায়ের করে। ওই মামলার প্রধান আসামী ইব্রাহিম একটি মারামারি মামলায় দন্ডপ্রাপ্ত এবং একাধিক মামলার আসামী হলেও এলাকায় তিনি প্রভাবশালী ব্যক্তি হিসেবে পরিচিত।
আদালত সূত্র জানায়, আনোয়ারা হত্যা মামলাটি থানায় দায়ের হলেও তদন্তের দ্বায়িত্ব পায় সিআইডি পুলিশ। ওই তদন্তে মামলার ১৪ আসামীর মধ্যে ঘটনার মূলহোতা প্রভাবশালী ইব্রাহিমসহ ৪ আসামীকে অব্যাহতি দিয়ে বাকি ১০জনকে অভিযুক্ত করে আদালতে চার্জসীট দাখিল করেন সংশ্লিষ্ট তদন্ত কর্মকর্তা। এতে বাদি সংক্ষুব্ধ হয়ে আদালতে নারাজি আবেদন দাখিল করলে দ্বিতীয় ও তৃতীয় দফায় পিবিআই ও ডিবি পুলিশ একই ভাবে আদালতে চার্জসীট দাখিল করে। ওই ৩টি চার্জসীটেই মামলার এজাহারের মূলহোতা ইব্রাহিমকে অব্যাহতি দেয়া হয়।
সূত্রটি আরো জানায়, এর আগে হত্যাকান্ডের প্রায় এক বছর পর আনোয়ারা হত্যা মামলায় গ্রেফতার হওয়া ১০নং আসামী ৩মাস জেল খেটে জামিনে ছাড়া পেয়ে ২০১৬ সালের ১৩ মার্চ বিজ্ঞ আদালতে একই হত্যকান্ডের ঘটনায় উল্টো মামলা দায়েরের আবেদন করে। বিজ্ঞ আদালত আবেদনটি আমলে নিয়ে পূর্বের মামলার চার্জসীট পর্যন্ত এ মামলার কার্যক্রম স্থগিত রাখার আদেশ দেন। চলতি বছরের বিগত ২৭ সেপ্টেম্বর সর্বশেষ চার্জসীট আদালতে গৃহীত হবার পর আসামী রেহানা ইয়াসমীন বাদি হয়ে দায়ের করার মামলাটি তদন্ত পূর্বক ২০২১ সালের ২১ জানুয়ারী আদালতে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য ওসি ডিবিকে নির্দেশ দিয়েছেন।
ওসি ডিবি শাহ কামাল আকন্দ জানান, আদালতের নির্দেশ পেয়ে আলোচিত এ হত্যাকান্ডের রহস্য অনুসন্ধানে গভীর তদন্ত চলছে। আশা করছি প্রকৃত রহস্য উন্মোচন হবে।