জার্নাল ডেস্ক
25 July 2019
  • No Comments

    মাশরাফি-সাকিবদের কোচ নির্বাচন : বিবেচনায় আছেন হাথুরুও

    শ্বকাপের পর সমঝোতা ভিত্তিতে সরিয়ে দেয়া হয়েছে প্রধান কোচ স্টিভ রোডসকে। প্রধান কোচ ছাড়াও আরো কয়েকটি পদ থেকে বাদ দেয়া হয়েছে সাপোর্টিং কোচদের। তবে এখন পর্যন্ত নতুন কোচ কে হবেন সে বিষয়ে নিশ্চিত করে কিছু জানায়নি বিসিবি। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছেন, যত দ্রুত সম্ভব কোচ নিয়োগ দিতে চান তারা। এ সময় বিসিবির গ্রাউন্ডস কমিটির প্রধান মাহবুব আনাম, অপারেশনস কমিটির প্রধান আকরাম খান ও মিডিয়া কমিটির প্রধান জালাল ইউনুসসহ উপস্থিত ছিলেন আরো কয়েকজন কর্মকর্তা।

    সংবাদ সম্মেলনে আগামী ২৭ তারিখ কোচ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্তের যে গুঞ্জন, তা নিশ্চিত নয় বলে জানান বিসিবি প্রধান, ‘কোচ নিয়ে এখনো কিছুই শুরু হয়নি। ২৭ তারিখেও আমরা তেমন কোনো আপডেট দিতে পারব কিনা এখনো নিশ্চিত না। এখানে তো একজন কোচ না। প্রধান কোচ, ফাস্ট বোলিং কোচ ও ফিজিও মিলিয়ে একাধিক কোচের খোঁজে আছি। আমরা এবার একটু ঠাণ্ডা মাথায় বুঝে-শুনে সিদ্ধান্ত নিতে চাচ্ছি।’

    শোনা যাচ্ছে ফের বাংলাদেশের কোচ হয়ে আসতে পারেন চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। এ বিষয়ে পাপন জানান, ‘শ্রীলংকা সিরিজ তো মাত্র শুরু। এখন তো কথা বলা নিষিদ্ধ। তাই যে তথ্যটা এসেছে সেটা ঠিক না। তবে এ সিরিজের পর যদি সে খালি থাকে এবং যদি সে আসার ইচ্ছা প্রকাশ করে, তবে সেক্ষেত্রে সেও সম্ভাব্য একজন হবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত কিছু ঠিক হয়নি।’

    আগেরবার কোচ নির্বাচনে ভূমিকা রেখেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার সাবেক ক্রিকেটার ও বিশ্বকাপজয়ী কোচ গ্যারি কারস্টেন। তবে এবার তেমন কারো পরামর্শ নেয়া হবে না বলে জানান বিসিবি প্রধান, ‘এবার আমরা নিজেরা বসে সিদ্ধান্ত নেব। অনেকের মতামত নিতে পারি, কিন্তু সিদ্ধান্ত এবার আমরাই নিচ্ছি।’ কোচ নিয়োগের আগে সংক্ষিপ্ত তালিকা করার সময় যে বিষয়গুলো বিবেচনায় রাখা হচ্ছে এ নিয়ে পাপনের ভাষ্য, ‘প্রথমত তারাই অগ্রাধিকার পাবে, যাদের জাতীয় দলের কোচিংয়ের অভিজ্ঞতা থাকবে। দ্বিতীয়ত, উপমহাদেশের কোনো দেশকে যদি কোচিং করানোর অভিজ্ঞতা থাকে এবং তাদের সম্পর্কে কোনো ধারণা থাকে, সেটাও বিবেচনা করা হবে।’

    কোচের দায়িত্ব নেয়ার জন্য আবেদন করার সময়সীমা ছিল ১৮ জুলাই পর্যন্ত। সে সময়সীমা শেষ হওয়ার পরও অনেকের সঙ্গে আলাপ হচ্ছে বলে জানান পাপন, ‘সাধারণত বেশি নামিদামি কোচ যদি আমরা আনতে যাই, তারা নিয়মতান্ত্রিক পদ্ধতিতে আবেদন করে না। তাদের আবার এজেন্ট থাকে। ওই এজেন্টের মাধ্যমে কথা বলতে হয়। তাই সবদিকই চলছে, অপরপক্ষ থেকেও আবেদন এসেছে। আমরাও যোগাযোগ করছি।’ তবে বোলিং কোচ নিয়ে সিদ্ধান্ত মোটামুটি চূড়ান্ত বলে জানান তিনি। তার কথায়, ‘বোলিং কোচের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার জন্য আমরা মোটামুটি শেষ পর্যায়ে চলে এসেছি। ২৭ তারিখে বোর্ড মিটিংয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেয়ার চেষ্টা করব।’

    এ সময় নির্বাচক কমিটি বদলানোর ব্যাপারেও কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি বলে জানান পাপন। তবে নির্বাচক কমিটির পারফরম্যান্সে সন্তুষ্ট থাকার কথাও জানিয়েছেন পাপন। এছাড়াও বিশ্বকাপে দলের পারফরম্যান্সে নিজের সন্তুষ্টির কথাও জানান বিসিবি প্রধান, ‘বিশ্বকাপে যাওয়ার সেরা যেসব বিষয়ের মুখোমুখি হয়েছি তার একটি হলো, বিশ্বকাপ চলার সময় তো বটেই, আইসিসি বোর্ড মিটিংয়েও যত জনের সঙ্গে দেখা হচ্ছে, প্রথম কথাতেই সবাই বাংলাদেশ দলের প্রশংসা করছে। এই যে স্বীকৃতি, এটা এর আগে আমরা কখনো পাইনি। আমি মনে করি, এ বিশ্বকাপ থেকে এটা অনেক বড় পাওয়া।’

    বিশ্বকাপে সন্তোষজনক পারফরম্যান্সের পরও কোচ বদলানো প্রসঙ্গে পাপন বলেন, ‘কোচের সঙ্গে আলাদা হয়ে যাওয়া একেবারেই ভিন্ন বিষয়। এটা সমঝোতার ভিত্তিতে হয়েছে। সে (স্টিভ রোডস) খুবই ভালো মানুষ। কিন্তু একেকজনের কোচিংয়ের একেকরকম স্টাইল থাকে। আলাদা চিন্তাধারা থাকে। আমাদেরও একটা চিন্তাধারা আছে। কোনো কোনো কোচ মনে করেন এটা একটা খেলা, এটা নিয়ে এত সিরিয়াস হওয়ার কী আছে। আবার কেউ আছেন, যিনি মনে করেন জিততেই হবে। দুটি বিষয়ের মাঝে পার্থক্য আছে। এর মাঝে ইংল্যান্ডে যেহেতু খেলার অভ্যাস নেই, তাই বিশ্বকাপের আগে অনুশীলনের আয়োজন করলাম, কিন্তু সেখানটায় অনুশীলন হলো না। যেহেতু অনুশীলনে আসা অপশনাল করে দেয়া হয়েছিল, কেউ আসেনি। এটা আসলে ‘কালচারাল মিসম্যাচ’। ও ধরেই নিয়েছে, প্রত্যেক খেলোয়াড় নিজের ইচ্ছাতেই চলে আসবে। কিন্তু এটা তো আমাদের সঙ্গে মেলে না। আমাদের এখানে অপশনাল বললে কেউ যায় না। এছাড়া ভারত-পাকিস্তান ম্যাচের আগে পাঁচদিন ছুটি দেয়া। বিশ্রাম দেয়া যেতে পারে, বিশ্রাম আর ছুটি একই বিষয় নয়। সবাই চলে গেছে বাইরে। এতে তো মনোযোগ বিঘ্নিত হয়। ওদের সংস্কৃতিতে হয়তো এটা ঠিক আছে। কিন্তু আমাদের সংস্কৃতির সঙ্গে এটা খাপ খায় না। সমঝোতার ভিত্তিতে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এমন নয় যে আমরা তাকে বাদ দিয়েছি।’

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *