মুক্তাগাছার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান চাকুরীর প্রতারণা মামলায় হাজতে

প্রকাশিত: ৮:৫২ অপরাহ্ণ, অক্টোবর ৪, ২০২০

নজরুল ইসলাম ,মুক্তাগাছা:

মুক্তাগাছা উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের বহিস্কৃত যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক দেবাশীষ ঘোষ বাপ্পী চেক প্রতারণা মামলায় জেল হাজতে। আজ রোববার ময়মনসিংহ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতে হাজির হয়ে জামিনের জন্য আবেদন করলে বিজ্ঞ আদালত জামিন না মঞ্জুর করে জেল হাজতে প্রেরণের নির্দেশ দেন। জানা যায়, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান দেবাশীষ ঘোষ বাপ্পী ভাইস চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময়ে ২০১৭ সালে উপজেলার সৈয়দগ্রাম গ্রামের মৃত আব্দুল কুদ্দুস এর পুত্র রফিকুল ইসলামের (৫৪) নিকট থেকে তার পুত্র সুজন মিয়াকে রাজউকে নিরাপত্তা প্রহরীর চাকুরী দেওয়ার কথা বলে ৭ লক্ষ টাকা সাবস্থ্য করে ৩ লক্ষ টাকা নেয়। পরবর্তীতে চাকুরী দিতে ব্যর্থ হয়ে নানান টাল বাহানা করতে থাকে। এ বিষয়ে একাধিকবার শালিসও হয়। শালিসের সিদ্ধান্ত মোতাবেক গত ১৫/১০/২০১৯ তারিখ বাদী রফিকুলকে দেবাশীষ ঘোষ বাপ্পি অগ্রণী ব্যাংক মুক্তাগাছা শাখায় তার নিজ নামের সঞ্চয় হিসাব নং- ০২০০০০৪৪৭৭০৫৬ এর অনুকূলে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার চেক প্রদান করেন। উক্ত চেক নিয়ে ব্যাংকে গেলে ব্যাংক হিসেবে কোন টাকা না থাকায় চেক ডিসওনার হয়। পরবর্তীতে রফিকুল দেবাশীষের কাছে টাকা চাইলে তাকে অশ্লীল ভাষায় গালাগালসহ বিভিন্নভাবে হুমকি ধামকি অব্যহত রাখে।অবশেষে গত শনিবার রফিকুল ইসলাম বাদী হয়ে দেবাশীষ ঘোষ বাপ্পিকে একমাত্র আসামী করে মুক্তাগাছা থানায় একটি প্রতারণা মামলা দায়ের করে। মামলা নং- ৪, তারিখ- ০৩/১০/২০২০ ইং। এ মামলায় রোববার বিজ্ঞ আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করলে আদালত জামিন না মঞ্জুর করে তাকে জেল হাজতে প্রেরণের নির্র্দেশ দেন। উল্লেখ্য যে. ভাইস চেয়ারম্যান থাকাকালীন সময়ে বহুলোকদের চাকুরী দেয়ার নামে মোটা অংকে টাকা হাতিয়ে নেযার বিষয়টি জনশ্রুতি রয়েছে। উপজেলা আওয়ামীলীগের দলীয়সূত্র জানান, বিগত পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে দলীয় প্রার্থীর বিরোদ্ধে বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে অংশ নেয়ায় দেবাশীষ ঘোষ বাপ্পিকে কেন্দ্রীয় সিদ্ধান্ত মোতাবেক উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক পদসহ আওয়ামীলীগ থেকে বহিস্কার করা হয়।