জার্নাল ডেস্ক
1 October 2020
  • No Comments

    মাদারগঞ্জে সমবায় সমিতি গ্রাহকদের টাকা নিয়ে উধাও: বিক্ষোভ

    নিজস্ব প্রতিবেদক :

    জামালপুরের মাদারগঞ্জ উপজেলার গুনারীতলা বাজারে উদয়ন বহুমুখী সমবায় সমিতি নামের একটি প্রতিষ্ঠানের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক গ্রাহকদের কোটি টাকা নিয়ে উধাও গ্রাহকদের বিক্ষোভ।
    এ ঘটনায় এলাকার শত শত নিরীহ ও দরিদ্র গ্রাহক তাদের তিলে তিলে জমানো কষ্টার্জিত টাকার শোকে দিশেহারা হয়ে পড়েছেন।
    গ্রাহকদের জমানো অর্থ আত্মসাৎ করে পালিয়ে যাওয়ার ঘটনায় শতশত গ্রাহক ক্ষুব্ধ হয়ে সমিতির সভাপতি আইনুল হকের বাড়ির উঠানে আবস্থিত সমিতিতে টাকা ফেরত এর দাবীতে বিক্ষোভ করেন।
    ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার মাদারগঞ্জ উপজেলার গুনারীতলা বাজারে ।
    জানা গেছে, ২০০৬ সালে মাদারগঞ্জ উপজেলা সমবায় কার্যালয় থেকে উদয়ন সমবায় সমিতি নামে একটি সমিতির নিবন্ধন দেওয়া হয়, যার নম্বর ১২৬। এর সভাপতি হন দুনীতির দায়ে চাকরিচ্যুত জনতা ব্যাংকের সুপারভাইজার গুনারীতলা ইউনিয়ন সদর এলাকার আইনুল হক। সম্পাদক হন একই এলাকার দৌলতজ্জামান। তারা দুজন মিলে অত্র উপজেলার কয়েকটি গ্রামের সাধারণ মানুষকে আমানতের ওপর অধিক লাভ দেওয়ার প্রলোভন দিয়ে কয়েক কোটি টাকা আমানত সংগ্রহ করেন।
    চতুরবাজরা আমানতের ওপর কয়েক মাস লাভ দিয়ে মানুষের কাছে বিশ্বস্থতা অর্জনের একপর্যায়ে তারা নিজেরা হয়ে যান কোটিপতি। তারা ঢাকা শহরে জমি ক্রয়সহ ফ্লাট এর ব্যবসা শুরু করেন। পরবতীতে নিজেরা ফ্ল্যাটও বাড়ির মালিক হয়ে যান।
    গ্রাহকরা তাদের আমানতের টাকা ফেরত চাইলে নানা হুমকি দিয়ে উধাও হয়ে যান । এইসব ঘটনায় প্রায় শতাধিক গ্রাহক স্থানীয় চেয়ারম্যান দারস্থ হন কিন্তু সমাধান হয়নি।
    এদিকে টাকার শোক সইতে না পেরে ওই সমিতির শতশত গ্রাহক প্রতিদিন সমিতিতে গিয়ে টাকার জন্য ধরনা দেন।
    ভুক্তভোগী লাকি বেগম বলেন, আমার প্রতিমাসে ৫০০০ টাকা ১০ বছর মেয়াদি ডিপিএসের মাধ্যমে টাকা জমা রাখতাম উদয়ন সমবায় সমিতিতে। এখন টাকা চাইলেই বিভিন্ন তালবাহানা দেখাচ্ছে।
    ভুক্তভোগী আঞ্জুয়ারা বেগম বলেন, আমি ৫০০ টাকা করে ৫ বছর মেয়াদি ডিপিএস খুলে ছিলাম আমার কষ্টার্জিত টাকাও আত্মসাৎ করার পরিকল্পনা করছে তারা।
    সমিতির সভাপতি আইনুল হক বলেন, ৬ সদস্য বিশিষ্ট পরিচালনা কমিটি মাধ্যমে উদয়ন সমবায় সমিতির পথচলা শুরু হয়। পরিচালনা কমিটি সদস্যগন সভাপতি -সম্পাদক এর নিকট অত্বীয়। সমিতির সম্পাদক দৌলতজ্জামান এর পরামর্শে জমির ব্যবসা করতে গিয়ে সে প্রতারণা মাধ্যমে ১কোটি ৩৭ লাখ টাকা সমিতির অত্মসাত করে। এর পর হতে সমিতির সাংগঠনিক আবস্থার দুর্বল হতে থাকে। টাকা অতœসাত এর ঘটনায় সমিতির সম্পাদক এর বিরুদ্ধে কোটে মামলা হয়েছে।
    সম্পাদক দৌলতজ্জামান বলেন, সমবায় অফিস কতৃক অডিটে ৩০ জুন ২০১৮ সালে সমিতির তহবিলে ২কোটি ৩৬ লাখ টাকা ছিলো। তহবিলের টাকা জমা-খরচ বইতে হালনাগাদ পায়নি কতৃপক্ষ। সমিতির টাকা ব্যাংকে না রেখে সভাপতির হাতে রাখার তথ্য প্রমাণ পেয়েছে অডিট টিম। বিভিন্ন কারনে আমি সমিতির সম্পাদক পদ হতে অব্যাহতি নিয়েছি সুতরাং সমিতির কোন দায়ভার আমার নেই।
    মাদারগঞ্জ উপজেলা সমবায় কর্মকর্তা শাহনাজ বেগম বলেন, উদয়ন সমবায় সমিতির সভাপতি আইনুল হক ও সম্পাদক দৌলতজ্জামান গ্রাহকদের টাকা নিয়ে উধাও হয়েছেন বলে শুনেছি। তবে আমার কাছে কেউ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ দিলে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *