জামালপুরের মেলান্দহে কৃষি বীজাগার ভবন চেয়ারম্যানের পেটে

প্রকাশিত: ৬:৪৪ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২১, ২০২০

মিঠু আহমেদ,জামালপুর:

জামালপুর জেলার মেলান্দহ উপজেলার হাজরাবাড়ী বাজার সংলগ্ন কৃষি বীজাগার ভবনটি চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম বাবু সংশ্লিষ্ট কৃষি অফিসকে না জানিয়ে ভেঙ্গে বিক্রি করে দিয়েছেন। এতে করে কৃষকদের বীজ সংরক্ষণাগারটি না থাকায় বিপাকে পড়েছেন স্থানীয় হাজার হাজার কৃষকরা। কৃষকদের দাবী চেয়ারম্যানের সন্ত্রাসী বাহিনীর কারণে তারা কোন প্রতিবাদও করতে পারেন না। কৃষি বিভাগের দাবী তারা উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা চেয়ারম্যানের কাছে লিখিত অভিযোগ করলেও পাচ্ছে না কোন প্রতিকার। বীজাগার ভবনটি ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়ে মালামাল বিক্রি করে দিলেও জানানো হয়নি কৃষি বিভাগের কাউকে।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, দীর্ঘদিনের পুরনো মেলান্দহ উপজেলার কৃষি অফিসের এই বীজাগার ভবনটি নির্মাণ করা হয়েছিল বীজ রক্ষণাবেক্ষণ ও এখান থেকে বীজ সরাসরি কৃষকদের মাঝে বিতরণ করার জন্যে। কিন্তু মেলান্দহ ফুলকুচা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম বাবু ভবনটি ভেঙ্গে গুড়িয়ে দিয়েছে। ভবনটির যাবতীয় মালামাল চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম বাবু বিক্রি করে সমুদয় টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলেও জানান স্থানীয় কৃষক ও কৃষি অফিসের কর্মকর্তারা। এ নিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে। তাদের দাবী বীজাগার ভবনটি না থাকলে উপজেলা কৃষি অফিসের বীজগুলি সংরক্ষণ ও বিতরন করাও কঠিন হয়ে যাবে। স্থবির হয়ে পড়বে কৃষির উন্নয়ন। তবে ওই স্থানে বর্তমানে বীজাগার ভবনের কোন অস্তিত্বই নেই।
এলাকার স্থানীয় কৃষক মহের আলী সেখ (৫৫) জানান, আমরা ছোট থেকেই হাজরাবাড়ী বাজার সংলগ্ন এই বীজাগার থেকে বীজ, সার, বিষ এসব সংগ্রহ করতাম। হঠাৎ কয়েকদিন ধরে শুনতে পাচ্ছি বীজাগার ভবনটি নাকি চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম বাবু বিক্রি করে আত্মসাত করেছে। এতে করে আমরা যারা কৃষিকাজ করি তারা খুবই সমস্যায় পড়ে যাব। এই চেয়ারম্যানের কথা কি আর বলবো সে পরিষদে বসে তার লালিত সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে প্রকাশ্যে গাজা সেবন করে। পরিষদেও সামনে দিয়ে গাজার গন্ধের কারণে মানুষ পরিষদেও যেতে চায় না। আমরা তার এধরনের কার্য্যকলাপ থেকে মুক্তি চাই।
মেলান্দহ ফুলকুচা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম বাবু বলেন, হাজরাবাড়ি বাজার সংলগ্ন কৃষি বীজাগার ভবনটি আমি ভেঙ্গেছি সত্য। তবে সেখানে অত্যাধুনিক একটি মার্কেট নির্মাণ করা হবে। তাই ভেঙ্গে ফেলা হয়েছে। তাই কাউকে কিছু বলার প্রয়োজন মনে করিনি। এই ভবনটি যার নির্দেশে ভাঙ্গা হয়েছে। তাকে কেউ কিছু বলতে পারবে না। আপনিও চোপ থাকেন। আমাদের মার্কেট নির্মাণ করতে দিন।
মেলান্দহ উপজেলা উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা বল্ক হাজরাবাড়ি সামিউল ইসলাম অভিযোগ করে বলেন, মেলান্দহ উপজেলার হাজরাবাড়ি বাজার সংলগ্ন কৃষি বীজাগার ভবনটি চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম বাবু ভেঙ্গে বিক্রি করে দিয়েছে। আমাদেরকে এ বিষয়ে কোন কিছু তারা জানায়নি। পরবর্তীতে আমরা জানতে পেরে আমাদের কর্মকর্তাদের জানাই এবং তাদের কাছে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করি। অভিযোগটি উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন পর্যন্তও আমরা এর কোন পতিকার পায়নি।
কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর খামারবাড়ি জামালপুরের উপপরিচালক কৃষিবিদ আমিনুল ইসলাম বলেন, আমি বিষয়টি শোনার পর মেলান্দহ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তাকে বললে তিনি তদন্ত করে জানতে পারেন, হাজরাবাড়ী বাজার সংলগ্ন বীজাগার ভবনটি ভেঙ্গে বিক্রি করে ফেলা হয়েছে। আমরা সংশ্লিষ্ট মহলকে অবহিত করেছি। তারাই প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবে। তবে ভবনটি ভাঙ্গার বিষয়ে আমরা কিছুই জানিনা। আমাদের না জানিয়েই চেয়ারম্যান মমিনুল ইসলাম বাবু ভেঙ্গে বিক্রি করে ফেলেছে।