গৌরীপুরে হত্যা মামলার আসামী ছাত্রলীগ সভাপতি” মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন

প্রকাশিত: ৪:২৬ অপরাহ্ণ, জুলাই ১১, ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ময়মনসিংহের গৌরীপুরে শিক্ষার্থী মো.কাঁলাচান হত্যা মামলার অন্যতম আসামী আল-হোসেনকে পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি করায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে দলীয় নেতা-কর্মীদের মাঝে।গতকাল বিক্ষোভ, মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন করে অবিলম্বে কমিটি বাতিলের দাবি জানিয়েছেন।
পৌর-ছাত্রলীগের সাবেক কমিটির সহ-সভাপতি নাজিমুল ইসলাম শুভ বলেন, আল-হোসেন শিক্ষার্থী কাঁলাচান হত্যার আসামী। সে এক মাসের মতো জেলও খেটেছে। বিগত সময়ে আল-হোসেন ছাত্রদলের রাজনীতির সাথেও জড়িত ছিল। এমন বিতর্কিত লোককে পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি করা মোটেও ঠিক হয়নি। টাকার বিনিময়ে এমপির ছেলে রাজীব তাকে সভাপতি বানিয়েছে। আমরা এই কমিটি বাতিল চাই।

সাবেক কমিটির সভাপতি উত্তম সরকার বলেন, পৌর ছাত্রলীগের কমিটি গঠনতন্ত্র অনুযায়ী হয়নি। গঠনতন্ত্র অনুযায়ী কোন আসামী কমিটিতে পদ পাবে না। কিন্তু টাকার বিনিময়ে এমপি সাহেবের বাসায় বসে সোমবার রাতে কমিটি দেয়া হয়েছে। এর প্রতিবাদে রাতেই আমরা বিক্ষোভ মিছিল করেছি এবং বুধবার দুপুরে মানববন্ধন ও সংবাদ সম্মেলনও হয়েছে। আমরা চাই কমিটির নেতৃত্বে যোগ্য ব্যক্তি আসুক।

সভাপতির পদ পাওয়া আল-হোসেন বলেন, কালাচাঁন হত্যায় আমাকে জড়িত সন্দেহে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। পরে ১৯দিন পর আমি মুক্তি পেয়েছি। কিন্তু এই হত্যাকান্ডে আমি কোন ভাবেই জড়িত না। আমাকে একটি মহল ফাঁসিয়েছে। আর আমি কোন দিন ছাত্রদলের রাজনীতির সাথে জড়িত ছিলাম না। তবে আমি টাকা দিয়ে পদ পায়নি। যোগ্য বলেই আমাকে সভাপতি করা হয়েছে।

স্থানীয় সাংসদের ছেলে তানজীর আহম্মেদ রাজীব বলেন, কমিটি ঘোষনা করায় সাবেক কমিটির লোকজনের মন খারাপ হয়েছে। কয়েকদিন গেলে সব ঠিক হয়ে যাবে। তবে অভিযোগ কিংবা মিছিল নতুন কমিটি হলে হওয়াটা স্বাভাবিক বলেই মনে করেন রাজীব।

সাংসদ মুক্তিযোদ্ধা নাজিম উদ্দিন আহম্মেদ বলেন, কোন পদই কারো জন্য স্থায়ী নয়। কারো পদ চলে গেলে কিছুটা ক্ষুব্দ হয়ে এটাই স্বাভাবিক। তবে আমি মনে করি যোগ্য লোকদের হাতেই কমিটি দেয়া হয়েছে। এতে বিতর্কের কিছু নেই।

এর আগে ২০১৭ সালের ৮ অক্টোবর উপজেলার ময়লাকান্দা ইউনিয়নের যুবদলের সহ-সাধারন সম্পাদক ওয়াজিদুল ইসলাম কালামকে ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক করায় বিতর্কিত হয় এমপিপুত্র রাজীবের বিরুদ্ধে।