জার্নাল ডেস্ক
9 July 2019
  • No Comments

    মমেক হাসপাতালে রোগীর মাথা ফাটিয়ে রক্তাক্ত করল ডেন্টাল চিকিৎসক ! আতংকে রোগীরা

    নিজস্ব প্রতিবেদক:ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ (মমেক) হাসপাতালের ডেন্টাল বিভাগে এক চিকিৎসক রোগীকে পিটিয়ে মাথায় ফাটিয়ে রক্তাক্ত করার ঘটনায় তোলপাড় সৃষ্টি হয়েছে হাসপাতালের ভেতরে-বাইরে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভিকটিমের রক্তাক্ত ভিডিও ভাইরাল হওয়ায় বইছে সমালোচনার ঝড়।
    ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে মমেক হাসপাতালের উপ-পরিচালক ডাঃ লক্ষী নারায়ন জানান, ঘটনাটি আমি শুনেছি, ভুক্তভোগীকে লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। অভিযোগ পেলেই ওই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে।
    জানা যায়, ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডেন্টাল শাখার বর্হি:বিভাগে গত ৮ জুলাই সকালে দশ টাকায় টিকিট কেটে চিকিৎসা সেবা পেতে যান ঈশ্বরগঞ্জ ডিগ্রী কলেজের ছাত্র তরুন মিয়া(২৫)। এরপর ডেন্টাল ডাক্তার এ.কে.এম আনিসুর রহমান বাবলুর নির্ধারিত কক্ষের সামনে লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করছিলেন তরুন। কিন্তু‘ কিছুক্ষন রোগী দেখার পর ডা: বাবলু কক্ষ থেকে বের হয়ে রোগীদের লাইনে রেখে বের হয়ে যান। ফিরে আসেন প্রায় ঘন্টাখানে পর।
    ভুক্তভোগী কলেজ ছাত্র তরুন মিয়া বলেন, ডাক্তার ফিরে আসার পর আমি কক্ষে ঢুকতেই ডাক্তার বলেন বেরিয়ে যাও এখন আমি রোগী দেখব না। এ সময় আমি বলেছি স্যার আগামীকাল আমার পরীক্ষা আছে, আমাকে আজকে একটু দেখে দেন। পরে আসতে আমার অসুবিধা হবে। এতেই ক্ষেপে যান ডাক্তার। এ সময় তিনি চর-থাপ্পড় মেরে রোগী বসার ঢোল দিয়ে আমার মাথায় আঘাত করে রক্তাক্ত জখম করেছেন। এ ঘটনায় অন্য রোগীরা এগিয়ে এসে আহত অব¯’ায় তরুনকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।
    কোতোয়ালী মডেল থানার ওসি মাহমুদুল হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ভুক্তভোগীর পক্ষ থেকে মৌখিক অভিযোগ পেয়ে বিষয়টি তদন্ত করছে পুলিশ। সেই সাথে ঘটনাটি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে ডিপার্টমেন্টালি জানানো হয়েছে। তদন্ত শেষে ব্যব¯’া নেয়া হবে।
    তবে এবিষয়ে জানতে একাধিকবার ডা: এ.কে.এম আনিসুর রহমান বাবলুর ব্যবহৃত মুঠোফোনে যোগাযোগ করেও তাঁর বক্তব্য জানা যায়নি।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *