শেরপুর ব্রিজের নিচে সন্ত্রাসীদের হামলায় আহত ৪

প্রকাশিত: ৬:৩৮ অপরাহ্ণ, আগস্ট ৫, ২০২০

মিঠু আহমেদ,জামালপুর :

জামালপুর শহরের জামালপুর ও শেরপুর ব্রীজের নিচে সন্ত্রাসীদের হামলায় ৪ জন আহত হয়েছে। এ সময় স্থানীয় দোকানদাররা হামলায় বাধা প্রদান করলে সন্ত্রাসীরা দোকানপাট ভাংচুর লোটপাট ও টাকা ছিনতাই করেছে বলে অভিযোগ করেছে স্থানীয়রা। ৩ তারিখ রাত্রি সাড়ে আটটার দিকে ঘঁনাটি ঘটেছে বলে জানা যায়।
আহতের পরিবাররা জানান, ৫ মাস পূর্বে সাতপাকিয়া চরের সমিতি হইতে ১ লাখ ১৫ হাজার ঋণ নিয়েছিলাম সমিতি হইতে ঋণ পরিশোধের তাগিদ দেওয়ায় লাভ এবং আসল টাকাসহ ১ লাখ ৪০ হাজার টাকা সমিতিতে পরিশোধ করার জন্য আমার ছেলে শাকিল আহম্মেদ সুজনকে সাতপাকিয়া চরের উদ্দেশ্যে পাঠিয়ে দেই এমন সময় ফুসকার দোকানের সামনে সন্ত্রাসী তৌকির, হাসান, জনি, সজল, সোহেল, রাকিব(২২), মুন্না (২৪), পাপ্পু (২৫), মেহেদী (২৩)সহ ২৫ থকে ৩০ জনের দলবল নিয়ে তাকে জোর জবরদস্তি করে একশটি ফোসকা খেতে বললে অপারগতা প্রকাশ করলে জোর করে আশিটি ফোসকা খাওয়ানোর পরে তাদেরকে লাঠিসোঠা দিয়ে আঘাত করতে শুরু করে। একপর্যায়ে ধারালো অস্ত্রদিয়ে শাকিল আহম্মেদ সুজনকে চখের উপরে বুকে ও পেটে আঘাত করে, কাবু অস্ত্রের মুখ থেকে বাচতে ব্রীজের উপর থেকে নদিতে লাফদেয় পরে তাকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে। এসময় মোহসীন, পলাশ ও টুটুল আহত হয়। তাদের কাছে থাকা ১লাখ ৪০ হাজার টাকা সন্ত্রাসীরা নিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয় দোকানদাররা বাঁধা দিলে তাদের দোকান ভাংচুর ও লোটপাট করে।
ব্রীজের নীচে স্থানীয় দোকানদার আছাদ মোশারফ রাজিব বলেন, সন্ত্রাসীরা যখন ছেলেগুলিকে আহত করে টাকা নিয়ে চলে যাচ্ছে এমন সময় আমরা কয়েকজন বাঁধা প্রদান করি। সন্ত্রাসীরা আমাদেরকেও মারধর করে আমার দোকানপাট ভাংচুর করে টাকা লোটপাট করে নিয়ে যায়। যারাই তাদের বাঁধা প্রদান করেছে তাদেরকেই সন্ত্রাসীরা মারধর করেছে। আমি এর সঠিক বিচার চাই।
জামালপুর থানার অফিসার ইনচার্জ সালেমুজ্জামান বলেন, এ বিষয়ে আমার থানায় সুলতান আহাম্মেদ বাদি হয়ে একটি এজাহার দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত স্বাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তবে পুলিশ তৎপর রয়েছে আসামীদের গ্রেফতারের জন্যে।
দোকানপাট ভাংচুর ও টাকা ছিনতাইয়ের অভিযোগ