জার্নাল ডেস্ক
9 July 2020
  • No Comments

    ঈশ্বরগঞ্জে অবৈধ ইজারাদারের বালু নিলাম হলেও জমা হয়নি টাকা !

    নিজস্ব প্রতিবেদক:

    অবশেষে বহু নাটকীয়তার পর ময়মনসিংহের ঈশ্বরগঞ্জ উপজেলার মরিচার চর বটতলা বালু মহালের বাজেয়াপ্ত বালু নিলাম হয়েছে। কিন্তু শর্ত অনুযায়ী ৯ জুলাই বৃহস্পতিবার বিকেল ৫টার মধ্যে নিলাম মূল্যের সাকূল্য টাকা জমা দেওয়ার কথা থাকলেও রহস্যজনক কারণে সরকারের কোষাগারে জমা হয়নি ওই টাকা। এতে সরকারের ১২ লাখ ৬০ হাজার টাকা রাজস্ব হারানোর আশঙ্কা দেখা দিয়েছে।

    নিলামে অংশগ্রহনকারী একাধিক ব্যক্তির অভিযোগ, উপজেলা প্রশাসন গত ৩০ জুন এক নোটিশে বটতলা বালু মহালের অবৈধ মজুদ করা বালু বাজেয়াপ্ত দেখানো হলেও সরেজমিনে দিন-রাত শত শত ট্রাক বালু প্রকাশ্যে বিক্রি করছেন অবৈধ মজুতকারীরা। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হলেও এখন পর্যন্ত কোন ধরনের পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়নি।

    সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, চলতি বছরের গত ১৩ এপ্রিল মরিচারচর বালু মহলের ইজারা মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও বালু উত্তোলন বিক্রয় ও ইজারা আদায় করার ঘটনায় স্থানীয় ইব্রাহিম নামের এক ব্যক্তি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে লিখিত অভিযোগ করে। গত ১১মে এ অভিযোগের প্রেক্ষিতে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে অবৈধ স্তুপকৃত (১১লাখ ৭০হাজার ৭৫০ঘনফুট) বালু পরিমাপ করে ১১ই মে থেকে ১লা জুন পর্যন্ত সময়ের মধ্যে ঘাটের স্তূপকৃত বালু সরিয়ে নিতে লিখিত নির্দেশ দেন। ওই নিদের্শে বলা হয় উল্লেখিত সময়ের মধ্যে বালু সরিয়ে নিতে ব্যর্থ হলে বাজেয়াপ্ত করা হবে। কিন্তু চলমান করোনা দূর্যোগ বিবেচনায় আরো এক মাস সময় পার করে গত ৩০ জুন অবৈধ স্তূপকৃত মাত্র ১ লাখ ১১হাজার ৩৭৫ ঘনফুট বালু বাজেয়াপ্ত দেখিয়ে ৯ জুলাই উপজেলা হল রুমে সকাল ১১টায় নিলাম কার্যক্রম আহবান করে সংশ্লিষ্ট সহকারী কমিশনার (ভূমি)।

    সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন ভূমি সহকারী মো: মিজানুর রহমান জানান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও সহকারী কমিশনার (ভূমি) মহোদয়ের উপস্থিতিতে জনপ্রতি এক লাখ টাকা জামানত দিয়ে নিলাম ডাকে অংশগ্রহন করেন ১২জন ব্যবসায়ী। এ সময় ১০লাখ ৫০ হাজার টাকার সর্বোচ্চ দরদাতা হিসেবে ডাক পায় স্থানীয় যুবলীগ নেতা মো: আজিজুল হক। কিন্তু নিলামের শর্ত অনুযায়ী ১৫ পার্সেন্ট ভ্যাট ও ৫ পার্সেন্ট আয়করসহ মোট ১২ লাখ ৬০ হাজার টাকা বিকেল ৫টার মধ্যে রাজস্ব খাতে জমা করতে বলা হয়েছে। কিন্তু শর্ত অনুযায়ী নিলাম মূল্যের সাকূল্য টাকা বিকেল ৫টার মধ্যে জমা দেওয়ার কথা থাকলেও সর্বোচ্চ দরদাতা টাকা জমা করেননি বলে জানায় সংশ্লিষ্ট সূত্র।

    এবিষয়ে উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) সাঈদা পারভীন জানান, শর্ত অনুযায়ী বিকেল ৫টার মধ্যে সর্বোচ্চ দরদাতা টাকা জমা দেননি। এতে তাঁর জামানত বাজেয়াপ্ত করা হবে এবং নতুন করে নিলাম ডাক আহবান করা

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *