জার্নাল ডেস্ক
9 July 2020
  • No Comments

    প্রবীন সাংবাদিক মোশারফ হুসেনের পাশে ইউকে জামালপুর সমিতি

    মিঠু আহমেদ,জামালপুর:

    অসুস্থ প্রবীন সাংবাদিক মোশারফ হোসেন ও তার মেয়ে মিতুকে বাঁচাতে মানবিক ডাকে সাড়া দিয়েছেন জামালপুর জেলা সমিতি ইউকে’র কয়েকজন মানবিক মানুষ। তারা ব্যক্তিগতভাবে ৪০ হাজার টাকা আর্থিক অনুদান দিয়েছেন। আরো সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন তারা।
    তাদের পক্ষে সাংবাদিক মোশারফ হুসেনের হাতে টাকা তুলে দিয়েছেন জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা,সহ-সভাপতি দুলাল হোসাইন,জামালপুর সাংবাদিক নির্যাতন কমিটির সাধারন সম্পাদক শওকত জামান ও প্রেসক্লাব কর্মকর্তা সাইফুল আলম খান লিপন।
    বিনা চিকিৎসা অর্ধহারে অনাহারে দিন কাটছে প্রবীন সাংবাদিক মোশারফ হুসেনের। হার্টের তিনটি স্থানে ব্লক ও নিউরো, উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্টে ভোগে র্দীঘদিন একবছর ধরে শয্যাশায়ী। অর্থের অভাবে চিকিৎসা করাতে পারছেনা মৃত্যু পথযাত্রী এই সাংবাদিক। ৩৪ বছরের সাংবাদিকতায় তিনি ইত্তেফাক ও দৈনিক বাংলায় কাজ করেছেন।
    অসুস্থ্য সাংবাদিক মোশারফ হুসেনের ছোট মেয়ে মিতুও কিডনি বিকল হয়ে শয্যশায়ী। সাপ্তাহে দুইদিন কিডনি ডায়ালোসিস করতে হয়। বড় ছেলে ব্যাংক কর্মকর্তা ফেরদৌস হোসেন লিটন থেকেও নেই। বাবার খোঁজ নেয় না। এখন পরিবারের একমাত্র উপার্জনক্ষম বড় মেয়ে আফরোজা বেগম নিভা। তিনি জামালপুর পৌরসভায় মাষ্টাররোলে ৫ হাজার টাকা বেতনে চাকুরী করেন। একদিকে বাবার চিকিৎসা অন্যদিকে কিডনি ডাইয়ালোসিসের মতো ব্যায়বহুল চিকিৎসায় বোনকেও বাঁচিয়ে রাখতে দিশেহার হয়ে পড়েছেন তিনি।
    আফরোজা বেগম নিভা বলেন, টাকার অবাবে আমার বাবাকে চিকিৎসা করাতে পারছিনা। চিকিৎসার টাকাতো দুরে থাক ঠিকমত খাবারের যোগান দিতে পারছিনা। আমার বাবা সাংবাদিক মোশারফ হোসেন ও বোন মিতুকে বাঁচাতে সমাজের হৃদয়বান ব্যক্তিসহ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আবেদন করেছেন তিনি।
    অসুস্থ্য সাংবাদিক মোশারফ হোসেন ও তার মেয়ে মিতু বাঁচাতে হৃদয়বান মানুষদের এগিয়ে আসার আহবান জানিয়েছেন তার পরিবার।
    জামালপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি হাফিজ রায়হান সাদা বলেন, প্রবীন সাংবাদিক মোশারফ হোসেন ও তার মেয়ে মিতুকে বাঁচাতে প্রচুর অর্থের প্রয়োজন। ইতোমধ্যে জামালপুর জেলা সমিতি ইউকের কিছু মানবিক মানুষ পাশে দাঁড়িয়েছেন। তাদের মতো দানশীল মানবিক মানুষরা এগিয়ে আসুন। বাঁচান সাংবাদিক মোশারফ ও তার মেয়ের জীবন।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *