র্দীঘ কারাবাসের পর জামিনে মহানগর ছাত্রলীগ নেতা আরিফ,নেতাকর্মীদের স্বস্তি

প্রকাশিত: ৬:২৫ অপরাহ্ণ, জুন ২২, ২০২০

মো: আমান উল্লাহ আকন্দ জাহাঙ্গীর:
টানা এক বছর ১৩দিন র্দীঘ কারাবাসের পর অবশেষে জামিনে কারামুক্তি লাভ করেছেন দেশজুড়ে আলোচিত ছাত্রলীগ নেতা আব্দুল্লাহ আল মামুন আরিফ। তাঁর মুক্তির খবরে ছাত্রলীগ নেতাকর্মী, সুহৃদ-স্বজন ও অনুসারীদের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।

সোমবার (২২জুন) দুপুরে ছাত্রলীগ নেতা আরিফের বড় ভাই তারেক হায়দার খবরের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, ৩টি মামলায় জামিন লাভের পর গত ২১জুন দুপুরে ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিনে মুক্ত হয়েছেন আরিফ। আমি তাঁর সুস্থতার জন্য সকলের নিকট দোয়া কামনা করছি।

জানা যায়, মহানগর ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন আরিফ ময়মনসিংহের ছাত্র রাজনীতির অঙ্গনে নন্দিত এক ছাত্র নেতার নাম। ব্যাপক জনপ্রিয়তায় বিশাল কর্মী বাহিনী নিয়ে ক্ষমতাসীন দলের সকল রাজনৈতিক কর্মকান্ডে তাঁর সরব বিচরন ছিল চমকিত। কিন্তু হঠাৎ রহস্যময় নানান অভিযোগ আর মামলার রোষানলে উলটপালট হয়ে যায় সব। অবশেষে একটি হত্যা মামলায় উচ্চ আদালত থেকে জামিন লাভ করলেও ২০১৯ সালের ১২ জুন একটি চাঁদাবাজি মামলায় পুলিশের হাতে গ্রেফতার হয় জনপ্রিয় এ ছাত্রলীগ নেতা। সেই থেকে র্দীঘ কারাবাসের কারণে দলীয় নেতাকর্মী ও অনুসারীদের মাঝে নেতা শূন্যতার হাহাকার ছিল দৃশ্যমান।

অবশেষে অকৃত্রিম হৃদ্ধ্যতার অধিকারী কর্মীবান্ধব এ ছাত্রলীগ নেতা গতকাল রবিবার (২১ জুন) ময়মনসিংহ কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে জামিন লাভের মধ্য দিয়ে স্বস্থি ফিরে এসেছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মী, সুহৃদ-স্বজন ও অনুসারীদের মাঝে।

সূত্র জানায়, ছাত্রলীগ নেতা আরিফ একটি হত্যা মামলা, একটি চাঁদাবাজি ও একটি অস্ত্র মামলায় ভাগ্যলিপির নানান ঘটন-অঘটনের মধ্য দিয়ে র্দীঘ সময় কারান্তরিন ছিলেন। তবে সাম্প্রতিক সময়ে চাঁদাবাজি মামলার চার্জসীটে আরিফের নাম বাদ পড়ে এবং অস্ত্র মামলায় স্থায়ী জামিন লাভ করে আরিফ। সর্বশেষ গত ১৮জুন হত্যা মামলায় উচ্চ আদালত থেকে অন্তবর্তীকালীন জামিন লাভ করে।