জার্নাল ডেস্ক
13 May 2020
  • No Comments

    নমুনা সংগ্রহে আগামী সপ্তাহে অর্ধশত বুথ স্থাপন করবে ব্র্যাক

    নিজস্ব প্রতিবেদক:
    নভেল করোনাভাইরাস সংক্রমণে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকাগুলোয় নমুনা পরীক্ষার জন্য স্বাস্থ্য অধিদপ্তরকে সহায়তা করতে বুথ স্থাপন করছে ব্র্যাক। আগামী সপ্তাহের মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে অর্ধশত নমুনা সংগ্রহ বুথ স্থাপন করবে সংস্থাটি। একইভাবে দেশব্যাপী ১০০টি বুথ স্থাপনের পরিকল্পনা রয়েছে ব্র্যাকের।

    স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে ব্র্যাক বর্তমানে ল্যাব টেকনিশিয়ান নিয়োগ, বুথ স্থাপন ও নমুনা সংগ্রহ করে ল্যাবে পাঠানোর ব্যবস্থা করছে। তাদের সহযোগিতায় ব্র্যাক টেকনোলজিস্টদের প্রশিক্ষণ প্রদান করছে। নমুনা সংগ্রহের কিট দিচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এ বিষয়ে শিগগিরই স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সঙ্গে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করবে ব্র্যাক। হাসপাতালে স্থাপিত বুথগুলো চলবে সেখানকার কর্মী ও ব্যবস্থাপনার মাধ্যমেই। অন্য বুথগুলোয় দায়িত্ব পালন করবেন ব্র্যাকের দুজন করে টেকনোলজিস্ট। এর একেকটি বুথে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত কার্যক্রম চলবে। প্রতিদিন ৪০ জনের নমুনা সংগ্রহ করা যাবে।

    যাদের করোনা উপসর্গ যেমন—জ্বর, সর্দি, কাশি, গলাব্যথা ও শ্বাসকষ্ট রয়েছে তারা নমুনা দিতে পারবেন। এর আগে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্ধারিত ফরমে নাম-ঠিকানা ও মোবাইল নাম্বার অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। নমুনা সংগ্রহের পর তা পরীক্ষার জন্য পাঠিয়ে দেয়া হবে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্ধারিত ল্যাবে। পরীক্ষার ফলাফল যার যার ফোন নাম্বারে এসএমএসের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয়া হবে।

    নমুনা সংগ্রহের ক্ষেত্রে দুটি পদ্ধতি অনুসরণ করা হবে। প্রথমত, জাতীয় নির্দেশনা অনুযায়ী প্যারামেডিকরা সন্দেহভাজন রোগীদের বাছাই করবেন। দ্বিতীয়ত, মেডিকেল কলেজ, হাসপাতাল অথবা আশপাশে স্থাপিত নমুনা সংগ্রহ কেন্দ্রে রেফার করা রোগীদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে। নমুনা সংগ্রহের ক্ষেত্রে বয়স্ক মানুষ, যাদের ডায়াবেটিস-রক্তচাপের মতো অনিরাময়যোগ্য রোগ আছে তারা, চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মী বা যারা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে কাজ করেন তারা অথবা যারা অফিসের পরিবেশে কাছাকাছি বসে কাজ করেন, তাদের অগ্রাধিকার দেয়া হবে।

    ব্র্যাকের স্বাস্থ্য, পুষ্টি ও জনসংখ্যা কর্মসূচির সহযোগী পরিচালক মোর্শেদা চৌধুরী বলেন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আহ্বানে সাড়া দিয়ে ব্র্যাক প্রাথমিকভাবে ঢাকা, নারায়ণগঞ্জসহ বেশি সংক্রমিত ১৯টি এলাকায় ১০০টি বুথ স্থাপন করবে। এর মধ্যে অর্ধেকই স্থাপন করা হচ্ছে ঢাকায়। প্রাথমিকভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ও শহীদ সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালে পাইলট প্রকল্প হিসেবে বুথ চালু করি আমরা। পরে স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নির্দেশনায় শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজ এবং নারায়ণগঞ্জে কয়েকটি বুথ বসানো হয়। ঢাকার দুই মেয়রের সঙ্গে আলোচনা করে বুথ বসানোর জন্য আরো কিছু স্থান নির্বাচন করা হয়েছে। গত সোমবার পর্যন্ত ঢাকার ১৪টি স্থানে ১৭টি বুথ স্থাপন করা হয়েছে।

    ঢাকার বুথগুলোর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব মেমোরিয়াল কেপিজে বিশেষায়িত হাসপাতাল ও নার্সিং কলেজ, শেখ হাসিনা বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউট, সরকারি ইউনানী ও আয়ুর্বেদিক মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল, উত্তরা আধুনিক মেডিকেল কলেজ। গত সোমবার গণমাধ্যমকর্মীদের জন্য সেগুনবাগিচায় ডিআরইউ কার্যালয়ে স্থাপিত একটি বুথ উদ্বোধন করেন তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। শিগগিরই জাতীয় প্রেস ক্লাবে আরেকটি বুথ স্থাপন করা হবে।

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *