জার্নাল ডেস্ক
12 May 2020
  • No Comments

    শেরপুরে প্রান্তিক কৃষকের গরুর চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা

    নাঈম ইসলাম, শেরপুর :

    শেরপুরের নকলায় এক অসহায় কৃষকের অসুস্থ্য গরুর চিকিৎসার দায়িত্ব নিয়েছেন উপজেলা প্রাণি সম্পদ অফিসার ডা. আবুল খায়ের মো. আনিসুর রহমান। উপজেলার কলাপাড়া এলাকার এক প্রান্তিক কৃষক হারেজ আলীর একমাত্র সম্বল গরুটির লাম্পি স্কিন নামক রোগে আক্রান্ত হলে অসহায় কৃষক দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। এমন খবর পৌঁছে যায় বিডি ক্লিন নকলার সদস্য নূর হোসেনের কাছে।

    নূর হোসেন এমন খবর পাওয়ার সাথে সাথে বাংলাদেশ ডেইরী ফারমার্স এসোসিয়েশন নকলা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক পারভেজ মোশাররফ হোসেনের কাছে করণীয় বিষয়ে পরামর্শ চাইলে, তিনি সরাসরি হারেজের বাড়িতে গিয়ে হজির হন। গরুর অবস্থা গুরুতর দেখে পারভেজ মোশাররফ উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার (ইউএলও) ডা. আবুল খায়ের মো. আনিসুর রহমানকে জানালে তিনি বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে বিবেচনায় নিয়ে চিকিৎসক আসাদুজ্জামান আসাদকে দায়িত্ব প্রদান করেন। পরে গরুর শরীর পরীা করে রোগ নির্ণয় শেষে সকল চিকিৎসা বিনামূল্যে প্রদান করা হয়।

    চিকিৎসক আসাদুজ্জামান আসাদ-এর সাথে ফোনে কথা বলে হারেজ আলীর সার্বিক বিষয়ে জেনে উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডা. আবুল খায়ের মো. আনিসুর রহমান দরিদ্র হারেজ আলীর গরুর চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। এমনকি যথারীতি চিকিৎসা শুরু করেদন। এর ফলে একদিনের ব্যবধানে অসুস্থ্য গরু শারীরিক অবস্থার উন্নতি হয়েছে বলে জানান বিডি ক্লিন নকলার সদস্য নূর হোসেন।

    বাংলাদেশ ডেইরী ফারমার্স এসোসিয়েশন নকলা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক পারভেজ মোশাররফ হোসেন বলেন, আাম সার্বক্ষণিক হারেজ ভাইয়ের অসুস্থ গরুর খোঁজ খবর রাখছি এবং প্রয়োজনে উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডা. আবুল খায়ের মো. আনিসুর রহমান স্যারের সাথে পরামর্শ করে সে মোতাবেক ঔষুধ খাওয়ানো হচ্ছে। খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে দরিদ্র হারেজের গরু রোগমুক্তি লাভ করবে বলে জানান উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডা. আবুল খায়ের মো. আনিসুর রহমান।

    বর্তমানে গরুর শারীরিক অবস্থার উন্নতি হওয়ায় উপজেলা প্রাণী সম্পদ অফিসার ডা. আবুল খায়ের মো. আনিসুর রহমান, বিডি ক্লিন নকলার সদস্য নূর হোসাইন, বাংলাদেশ ডেইরী ফারমার্স এসোসিয়েশন নকলা উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক পারভেজ মোশাররফ হোসেন ও নকলা প্রাণি সম্পদ অফিসের চিকিৎসক আসাদুজ্জামান আসাদ-এর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন দরিদ্র কৃষক হারেজ আলী

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *